মঙ্গলবার , ১৯ মার্চ ২০২৪ | ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. জাতীয়
  2. রাঙামাটি
  3. খাগড়াছড়ি
  4. বান্দরবান
  5. পর্যটন
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. রাজনীতি
  8. অর্থনীতি
  9. এনজিও
  10. উন্নয়ন খবর
  11. আইন ও অপরাধ
  12. ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী
  13. চাকরির খবর-দরপত্র বিজ্ঞপ্তি
  14. অন্যান্য
  15. কৃষি ও প্রকৃতি
  16. প্রযুক্তি বিশ্ব
  17. ক্রীড়া ও সংস্কৃতি
  18. শিক্ষাঙ্গন
  19. লাইফ স্টাইল
  20. সাহিত্য
  21. খোলা জানালা

রাজস্থলীতে জনপ্রতিনিধিদের জড়িয়ে মিথ্যা অভিযোগ প্রচার ও মামলার বিরুদ্ধে মানববন্ধন 

প্রতিবেদক
প্রতিনিধি, রাজস্হলী, রাঙামাটি
মার্চ ১৯, ২০২৪ ১:৪৬ অপরাহ্ণ

 

রাঙামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি উবাচ মারমা , গাইন্দ্যা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পুচিংমং মারমা এবং সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পৌয়াইতু মৌজার হেডম্যান এবং জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য উথিনসিন মারমাকে জরিয়ে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ ও ষড়যন্ত্র মুলক মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে রাজস্থলী উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণ।

১৯ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ১০ ঘঠিকার সময় রাজস্থলী উপজেলা চত্বরে আয়োজিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ বক্তব্য রাখেন মাওলানা নুরুল হক, আজগর আলী খান, ধনরাম কর্মকার,ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন, তালুকদার, দীলিপ দাশ, শিমুল দাশ , নজরুল ইসলাম,নয়ন চৌধুরী, ডাঃ ইউসুফ আলী খান, দেবাশীষ দাস, সাজু বনিক,ডাঃ সুজন ঘোষ , নয়ন কান্তি দে, ধনপ্রতি দে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন রাজস্থলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উবাচ মারমা, ইউপি চেয়ারম্যান পুচিংমং মারমা ও উপজেলা উপজেলা চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমাকে জরিয়ে গত ১৫ মার্চ দৈনিক কালবেলা সহ বেশ কয়েকটি পত্রিকায় প্রকাশিত উবাচ -পুচিমং বাহিনীর হাতে জিম্মি পাহাড়ি বাঙ্গালী শিরোনামে নিউজ টির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন।

বক্তরা আরো বলেন রাজস্থলী উপজেলার যীশু সাহা পিতাঃ সনাতন সাহা দীর্ঘ দিন ধরে একটি ড্র- সমিতিতে জমানো বাবদে সহ সহ বেশ কয়েকটি একাউন্টের চেক দিয়ে এলাকার বেশ কয়েকজন ব্যাক্তির থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে যীশু সাহা। টাকা গুলো আদায়ের জন্য পাওনাদাররা উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবরে বেশ কয়েকটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তারে প্রক্ষিতে যেহেতু আবেদন কারী ও বিবাদী সনাতন ধর্ম অবলম্বী স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সমাজের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতে একটি বৈঠক বাসার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান।

বৈঠকের জন্য একটি নোটিশ বিবাদী যীশু সাহার নিকট পাঠানো হয়েছিলো। যথা সময়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বাদীরা উপস্থিত হলেও বিবাদী যীশু সাহা সময় মতো উপস্থিত না হওয়ায়, কয়েকজন ইউপি সদস্য ও সমাজের নেতৃবৃন্দকে যীশুর বাড়িতে পাঠালে তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অশ্লীল ভাষায় ব্যবহার করেন যীশু। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান অন্য আরেক জনকে ফোন করলে পরে বিবাদী যীশু সাহা কিছুক্ষণ পর বৈঠক স্থলে আসেন ।

বাদি ও বিবাদীদের কথা শুনার এক পর্যায়ে বিবাদী যীশু সাহা বৈঠক স্থলে থেকে জোর পূর্বক চলে আসতে চাইলে উপজেলা চেয়ারম্যান তাকে বকা দেন। বিষয়টি কে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে কালবেলা পত্রিকায় সহ বেশ কয়েকটি পত্রিকায় উপজেলা চেয়ারম্যান উবাচ মারমা, ইউপি চেয়ারম্যান পুচিংমং মারমা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌয়াইতু মৌজার হেডম্যান উথিনসিন মারমা সহ দুই জন বাদী সঞ্জয় বনিক ও সাজু বনিকের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের নিকট মিত্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ দায়ের করেছেন এবং রাঙ্গামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে বক্তরা উল্লেখ করেন।

এদিকে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান উবাচ মারমা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও হেডম্যান উথিনসিন মারমা এবং গাইন্দ্যা ইউপি চেয়ারম্যান পুচিংমং মারমা অসাম্প্রদায়িক মনের মানুষ। তাদের মধ্যে কোন প্রকার সাম্প্রদায়িক মন মানসিকতা নেই বললেই চলে।

এদিকে যীশু সাহার সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন অমার কাছে অনেকে টাকা পাবে সেটি সত্যি। তবে এতো টাকা পাবে না। এবং পাওনাদাররা যদি প্রমান সাপেক্ষে আমার নিকট থেকে কোটি টাকা পায় আমি দিয়ে দিব, আমার সম্পদ আছে। কিন্তু বিচারে ডেকে কেন আমাকে অপমান করলো। উপজেলা চেয়ারম্যান যে বিচারে নিয়ে আমাকে মারধর করবে সেটি আমি আগের থেকেই জানতাম। তাই আমি প্রথমে বিচারে হাজির না হয়ে পরে বিচারে গিয়েছিলাম। তাই আমি ভিডিও করে রেখেছি। বিচারের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সব কিছু ভিডিও আমার কাছে আছে । আমার মা এবং বড় ভাই আমাকে একাধিক অনুরোধ করেছেন মামলাটি নামিয়ে ফেলার জন্য।আমি রাজি হয়েছিল। যেহেতু আমার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে আমি আইনের প্রক্রিয়া চলবো বলে জানান।

 

সর্বশেষ - আইন ও অপরাধ

%d bloggers like this: