বুধবার , ১০ এপ্রিল ২০২৪ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. জাতীয়
  2. রাঙামাটি
  3. খাগড়াছড়ি
  4. বান্দরবান
  5. পর্যটন
  6. এক্সক্লুসিভ
  7. রাজনীতি
  8. অর্থনীতি
  9. এনজিও
  10. উন্নয়ন খবর
  11. আইন ও অপরাধ
  12. ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী
  13. চাকরির খবর-দরপত্র বিজ্ঞপ্তি
  14. অন্যান্য
  15. কৃষি ও প্রকৃতি
  16. প্রযুক্তি বিশ্ব
  17. ক্রীড়া ও সংস্কৃতি
  18. শিক্ষাঙ্গন
  19. লাইফ স্টাইল
  20. সাহিত্য
  21. খোলা জানালা

বৈসাবি উৎসব উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের বর্ণিল আয়োজন

প্রতিবেদক
বিশেষ প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি
এপ্রিল ১০, ২০২৪ ৫:৩৭ অপরাহ্ণ

 

বৈসাবি উৎসব উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে অনুষ্টিত হয়েছে ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের বর্ণিল আয়োজন। আজ বুধবার(১০ এপ্রিল) সকালে খাগড়াছড়ি টাউন হল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন,পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিক হয়েই পাহাড়ের মানুষের জনজীবন, কৃষ্টি, সংস্কৃতি ধরে রাখতে উদ্যোগ গ্রহণ করে কাজ করছেন। তার প্রমাণ ঢাকার বুকে এক খন্ড পার্বত্য চট্টগ্রাম শেখ হাসিনা কমপ্লেক্স। সকলে মিলে সম্প্রীতি, উন্নয়ন ও শান্তির ধারা রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী।

পরে বেলুন উড়িয়ে বৈসু’র র‌্যালির উদ্বোধন করেন প্রতিমন্ত্রী। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে ত্রিপুরা সংসদের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের এ উৎসবে সামিল হন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু, খাড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো: সহিদুজ্জামান,পুলিশ সুপার মুক্তা ধর, খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া, জেলা পরিষদ সদস্য খোকনেশ্বর ত্রিপুরা ও শতরুপা চাকমা, খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি প্রদীপ চৌধুরী ও খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি জীতেন বড়ুয়া ছাড়াও প্রশাসনের কর্মকর্তা,জনপ্রতিনিধি ও ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের বিভিন্ন বয়সী মানুষ।

পুরাতন বছরকে বিদায় ও নতুন বছরকে বরণে ত্রিপুরাদের প্রধান সামাজিক উৎসব বৈসু। দীর্ঘ এক বছরের অপেক্ষা শেষে বৈসু শোভাযাত্রা যোগ দেয় ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের বিভিন্ন বয়সী মানুষ।নিজেদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক করে শোভাযাত্রকে আরো রঙিন করে তোলে তরুণ-তরুণী ও শিশুরা। পরিবেশন করা ঐতিহ্যবাহী গরয়া ও ত্রিপুরা নৃত্য। আয়োজনে অংশ নিয়ে খুশি তারা।

উৎসবের মাধ্যমে পাহাড়ে বসবাসরত মানুষের মাঝে ঐক্যের বন্ধন আরো সু-দৃঢ় হবে আশা আয়োজকদের।

আগামী ১২ এপ্রিল পাহাড়ে প্রাণের উৎসব বৈসাবি শুর হবে। অন্যান্য জাতিগোষ্ঠির সাথে ত্রিপুরারা বৈসুমা, হারি বৈসু ও বিসিকাতাল নামে তিন দিনব্যাপি বৈসু উৎসব পালন করবে।#

সর্বশেষ - আইন ও অপরাধ

আপনার জন্য নির্বাচিত
%d bloggers like this: